পাওয়ার সাপ্লাই কেনার আগে জেনে নিন

asus-rog-1200w-power-supply

কম্পিউটার হার্ডওয়্যারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন যন্ত্রের মধ্যে একটি হল পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট সংক্ষেপে পিএসইউ(PSU)

কম্পিউটার এন্থুসিয়াস্ট বা কম্পিউটার বিশেষজ্ঞ ছাড়া সাধারনত কম্পিউটার বিল্ডের সময় আমরা জানি না কোন পিএসইউটা আমাদের সিস্টেমের জন্য ভালো অথবা ক্ষতিকর হতে পারে। তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আমরা সেলস রিপ্রেসেন্টেটিভদের বলে থাকি তাদের মত করে একটা পাওয়ার সাপ্লাই দিয়ে দিতে। এক্ষেত্রে অনেকেই বাজে মানের পাওয়ার সাপ্লাই দিয়ে অতিরিক্ত লাভ করতে চায়। আর একটা খারাপ মানের পাওয়ার সাপ্লাই যথেস্ট পুরো সিস্টেমকে নস্ট করে দেয়ার জন্য।

যাইহোক, পাওয়ার সাপ্লাইয়ের কাজ হলো সিস্টেমের সবক্ষেত্রে মাদারবোর্ডের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক পাওয়ার সরবরাহ করা। পাওয়ার সাপ্লাই ওয়াল থেকে সংগৃহীত এসি কারেন্টকে ডিসি কারেন্টে রূপান্তর করে কম্পিউটারের যন্ত্রাংশে পাওয়ার দিয়ে থাকে।  
এক্ষেত্রে পাওয়ার সাপ্লাই সিস্টেমের চাহিদামত না হলে পাওয়ার সাপ্লাই অথবা কম্পিউটারের যন্ত্রাংশের ক্ষতি হতে পারে। তাই আপনার পুরো কম্পিউটার সিস্টেমের প্রোটেকশনের জন্য একটি ভালো মানের পাওয়ার সাপ্লাই জরুরী।

জেনে নিন পাওয়ার সাপ্লাই কি কি দেখে কিনবেন।

১। কতো ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাই কিনবেন?
এটা নির্ভর করে আপনার কম্পিউটার সিস্টেমের প্রসেসর, মাদারবোর্ড, র‍্যাম, হার্ড ড্রাইভ, গ্রাফিক্স কার্ড এবং অন্যান্য যন্ত্রাংশের একত্রে বিদ্যুতের চাহিদার উপরে। এক্ষেত্রে ওয়াট এর হিসেবে পাওয়ার সাপ্লাই হয়ে থাকে। আপনার সিস্টেমের পুরো পাওয়ারের হিসেব করতে পাওয়ার সাপ্লাই ক্যালকুলেটর ওয়েবসাইটগুলো ব্যবহার করতে পারেন। এটি কিছু হলেও আপনাকে ধারণা দিবে কত ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাই কিনতে হবে। তবে আপনার সিস্টেমের চাহিদার তুলনায় সামান্য বেশি ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাই কেনা ভালো কারন ভবিষ্যতে যদি আপনি কম্পিউটার যন্ত্রাংশের কোন পরিবর্তন বা আপগ্রেড করে থাকেন তখন পাওয়ার সাপ্লাই নিয়ে ভাবতে হবে না।
বর্তমানের প্রসেসর এবং অন্যান্য যন্ত্রাংশের ভিত্তিতে একটি সাধারন কম্পিউটারের জন্য ৩০০-৪০০ ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাই যথেস্ট।
অন্যদিকে একটি গেমিং কম্পিউটারের জন্য বর্তমানে ৫০০-৮০০ওয়াট কিংবা ১০০০ ওয়াটের পাওয়ার সাপ্ললাইও প্রয়োজন পড়তে পারে। এটি নির্ভর করে গ্রাফিক্স কার্ড এবং প্রসেসরের চাহিদার উপরে।   

২। ওয়াটই সবকিছু নয় পাওয়ার রেইলও একটা বিষয়

পাওয়ার সাপ্লাইয়ের ওয়াটেজ থেকে অন্যতম গুরুত্বপূর্ন একটি বিষয় হলো পাওয়ার সাপ্লাইয়ের রেইল। পাওয়ার সাপ্লাইয়ের রেইল বলতে বুঝায় ১২ ভোল্টের একটি রেইল সর্বোচ্চ কত ওয়াটের পাওয়ার দিতে পারবে। এক্ষেত্রে OCP বা ওভার-কারেন্ট প্রোটেকশন নামক একটি চিপ আছে যেটি এই রেইলের ধারনক্ষমতার বাইরে আর পাওয়ার ডেলিভার করতে দেয় না।
ভালো মানের পাওয়ার সাপ্লাইতে একাধিক ১২ ভোল্টের রেইল থাকে। মাল্টিপল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাই সিংগেল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাইয়ের তুলনায় ভালো। কারন একটি সিংগেল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাইইয়ের ১২ ভোল্ট রেইল একাই সব লোড নিয়ে থাকে পুরো পাওয়ার সাপ্লাইয়ের। এবং OCP চিপ ফেইল হলে পাওয়ার সাপ্লাই এবং বাকি যন্ত্রাংশের ক্ষতি হতে পারে। কিন্তু মাল্টিপল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাইতে প্রতিটি রেইলের সাথে OCP চিপ আছে।
মাল্টিপল রেইল সাধারনত ভালো মানের পাওয়ার সাপ্লাইতে থেকে থাকে।  যদিও বর্তমান আধুনিক পাওয়ার সাপ্লাইগুলো কম্পিউটার যন্ত্রাংশের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে প্রস্তুত করা হয়ে থাকে। তাই বলে বলছি না সিংগেল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাই খারাপ। তবে নন ব্র্যান্ড সিংগেল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাইগুলো ভাল হয়ে থাকে না।

তবে আপনার এক্সটার্নাল গ্রাফিক্স কার্ড থাকলে মাল্টিপল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাই ভালো হবে সিংগেল রেইলের পাওয়ার সাপ্লাইয়ের তুলনায়। তবে বর্তমানে অধিকাংশ পাওয়ার সাপ্লাই মাল্টিপল রেইলের হয়ে থাকে।

২। সস্তা পাওয়ার সাপ্লাই নাকি ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই?
ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাইএর দাম বেশি হলেও সাধারনত যথেষ্ট ভালো মানের হয়ে থাকে। বাজারে থাকা নন ব্র্যান্ড চাইনিজ পাওয়ার সাপ্লাইগুলো ৫০০/৬০০ওয়াট ৭০০টাকা থেকে শুরু হয়ে থাকে। কিন্তু এসব পাওয়ার সাপ্লাইয়ের মধ্যে অনেক নন ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই গুলোর গায়ে ৫০০/৬০০ ওয়াট লেখা থাকলেও আসলে এসব পাওয়ার সাপ্লাই দিতে পারে মাত্রে ২০০-২৫০ওয়াট। যা অনেকক্ষেত্রে সিস্টেমের চাহিদার তুলনায় কম। আর যদি আপনার কম্পিউটার সিস্টেমে অতিরিক্ত গ্রাফিক্স কার্ড থেকে থাকে তাহলে ভুলেও এ ধরনের পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করা উচিত নয়। এছাড়া ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাইতে ভালো মানের ক্যাপাসিটর ব্যবহার করা হয়ে থাকে যা পাওয়ার সাপ্লাইয়ের একটি গুরুত্বপূর্ন অংশ।
তাই যারা নতুন কম্পিউটার বিল্ড করতে যাচ্ছেন তাদের উদ্দেশ্যেই বলছি, সস্তা পাওয়ার সাপ্লাই কিনে ধরা খাবেন না। নামকরা ব্র্যান্ডের পাওয়ার সাপ্লাই কিনুন এবং কেনার আগে রিভিউ দেখে কিনুন।


৩। ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই সার্টিফিকেশন(৮০ প্লাস সাধারন, ব্রোঞ্জ, গোল্ড, সিলভার, প্লাটিনাম, টাইটেনিয়াম)
ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাইয়ের এফিসিয়েন্সির একটা মাপকাঠি রয়েছে। এই মাপকাঠি প্রকাশ করে এটি ওয়াল থেকে মানে বাসার পাওয়ার সকেট থেকে কত ওয়াটেজ পাওয়ার টেনে থাকে এবং কত পরিমাণ পাওয়ার কম্পিউটারকে দিতে পারে। পাওয়ার সোর্স থেকে কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ পর্যন্ত পাওয়ার যেতে যেতে অনেকটাই লস হয়। সেজন্য এই এফিসিয়েন্সি লেভেল দিয়ে পাওয়ার সাপ্লাইগুলো বানানো হয়ে থাকে।

এক্ষেত্রে ৮০% এফিসিয়েন্সি এর মানে হল যদি একটি পাওয়ার সাপ্লাই ১০০ ওয়াট ওয়াল সকেট থেকে গ্রহন করলে পাওয়ার সাপ্লাই কম্পিউটার যন্ত্রাংশকে সরবরাহ করতে পারবে ৮০ ওয়াট পাওয়ার। যদিও এটা একটি উদাহরন তবে এফিসিয়েন্সি যত বেশি হবে তত ভালো।
এই জন্য এফিসিয়েন্সিকে প্রকাশ করার জন্য ৮০ প্লাস, ৮০ প্লাস ব্রোঞ্জ, ৮০ প্লাস গোল্ড, ৮০ প্লাস সিলভার, ৮০ প্লাস প্লাটিনাম, ৮০ প্লাস টাইটেনিয়াম হয়ে থাকে। ৮০ প্লাস প্লাটিনাম, টাইটেনিয়াম সর্বোচ্চ মানের এফিসিয়েন্সি প্রকাশ করে থাকে। যদিও ৮০ প্লাস প্লাটিনাম, টাইটেনিয়াম পাওয়ার সাপ্লাইগুলো দামেও অনেক হয়ে থাকে। যেমন, ASUS ROG Thor 1200W   

৪। পাওয়ার সাপ্লাইয়ের আকার, মডুলার/নন-মডুলার, কেবল ম্যানেজমেন্ট
সাধারনত স্ট্যান্ডার্ড মানের পাওয়ার সাপ্লাই ATX12V এর হয়ে থাকে। তবে আকারভেদে পাওয়ার সাপ্লাইয়ের ধরন পরিবর্তন হতে পারে। স্ট্যান্ডার্ড ATX12V এর পাশাপাশি EPS12v পাওয়ার সাপ্লাই পাওয়া যায় যেগুলো একটু ছোট আকারের। আবার ATX12V আবার এর কিছু ভার্শনও রয়েছে।
তবে একদমই ছোট আকারের বা Small From Factor(SFF) মানে আইটিএক্স কেস এর জন্য SFX পাওয়ার সাপ্লাই পাওয়া যায়। এই ছোট আকারের পাওয়ার সাপ্লাইয়ের মধ্যে SFX(Small form Factor) ছাড়াও CFX(Compact Form Factor), LFX(Low Profile Form Factor), TFX(Thin Form Factor) পাওয়া যায়।
দেশের বাজারে যদিও স্ট্যান্ডার্ড এটিএক্স১২ভোল্ট পাওয়ার সাপ্লাইগুলো বেশি জনপ্রিয়।   

বর্তমানের ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাইগুলো মডুলার, সেমি-মডুলার এবং নন-মডুলার হয়ে থাকে। মডুলার বলতে বুঝায় পাওয়ার সাপ্লাইয়ের ইউনিট থেকে তারগুলো আলাদা করা সম্ভব। সেমি- মডুলারে সবগুলো তার আলাদা করা সম্ভব নয় এবং নন-মডুলার পাওয়ার সাপ্লাইতে তারগুলো পাওয়ার সাপ্লাই হতে আলাদা করা সম্ভব নয়। কেবল ম্যানেজমেন্ট সাধারনত ভালো হয়ে থাকে যদি পাওয়ার সাপ্লাই মডুলার অথবা সেমি-মডুলার হয়ে থাকে।
তবে কেবল ম্যানেজমেন্ট আবার নির্ভর করে তারের দৈর্ঘের উপরে।

৫। ব্র্যান্ডভেদে পাওয়ার সাপ্লাই ধাপের লিস্ট
ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই সিরিজের একটি ধাপ বা টিয়ার লিস্ট দেখতে হলে লাইনাস টেক টিপসের ফোরামে দেখতে পারেন। লিঙ্ক এখানে

ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shop By Department